আমাদের ছোটবেলা


ফওজিয়া পারভীন
অথর
ছোট গল্প ডেক্স   সাহিত্য আসর
প্রকাশিত :১৫ মে ২০১৯, ১১:৫৮ অপরাহ্ণ
আমাদের ছোটবেলা

মাদের ছোটবেলাটা অনেক মিষ্টি ছিলো।তখন ছোটবেলার প্রিয় খেলা গুলো ছিলো_-ডিমাডিমি, গোল্লাছুট,বউবান্তি(বউ বন্ধক),মাছ মাছ,পানিতে নক্কা নক্কা,কানামাছি, হাইল্লাজাইল্লা(ভালো নাম জানিনা), একের ঋতু, হাড়ি পাতিল, পুতুল বউ, ওপেনটি বায়েস্কোপ,এক হাত লম্বা, কানে কানে ফিসফিস, এক্কা দোক্কা, সাত চামা, হাসনা বুড়ি, ইস্কি মিস্কি, ডান্ডাগোল্লা, মারবেল খেলা, লাটিম ঘুরানো, খড়ের গাদায় পাখির বাসা বানানো ইত্যাদি অনেক মজার মজার খেলা। তখন টাকার অভাব ছিলো না,পাটি পাতা অথবা যে কোন গাছের পাতা ছিঁড়ে টাকা বানাতাম।আর সবচেয়ে কষ্টের যেটা ছিলো সেটা হলো,বয়সে ছোট কিংবা খেলা কম পারলেই ” দুধ ভাত ” বানাই দিতো।আর খেলায় হারলে কৈ মাছের মতো কানে হাঁটা অথবা পিঁপড়া বিয়ে করানো।

আর দিন শেষে ধুলো বালি

মাখা শরীলে মায়ের দু’চারটা চড়-থাপ্পড় দিয়ে পানি দিয়ে পরিষ্কার করে দেওয়া।
আর এখনকার বাচ্ছারা খেলাধুলা করার জন্য সেই জায়গাই পায় না।আর পেলেও একক পরিবারের কারণে খেলার সাথী পায় না। আর সবচেয়ে বড় জিনিস মোবাইল, টেব,ল্যাপটপের গেইমস্ ছেড়ে বাইরে আসতেই রাজী নয় তারা।যার ফলশ্রুতিতে প্রকৃতির সাথে তাদের যোগাযোগ ছিন্ন হয় এবং অল্প বয়সে চোখে বুড়ো দাদার মতো চশমা পরে ঘুরতে হয়।।
.
আমাদের ছোটবেলাটা কেটেছে দাদা-দাদীর কাছে রূপকথার গল্প শুনে।আর বর্তমানের বাচ্ছাদের সময় কাটে কার্টুন বা গেইমস্ এ। ছোটবেলায় আমারা চাচাত -জেঠাতো ভাই-বোন ঝগড়া বাঁধাইতাম,কে থাকবে দাদীর সাথে সেটা নিয়ে।কারণ দাদী ঘুমানোর সময় রূপকথার অনেক গল্প বলতেন। গল্পগুলো ছিলো

এমন,রহিম বাদশাহ রূপবান, স্বপ্নপুরীর রাজকুমার, সাত ভাই চম্পা ইত্যাদি। সেই গল্পে থাকতো রাজকুমার, রাজকুমারী, তাদের পরিবার,জ্বীন,পরী,বিভিন্ন ধাঁধাঁ,শর্ত ইত্যাদি।
আর বর্তমানে বাচ্ছারা দেখে বা শিখে, “টম এন্ড জেরী, শীবা, মোটু-পাতলু ইত্যাদি।” আর কথায় কথায় হিন্দি।মে তুঝে ছোডুংগা নেহি, শিবা মুঝে বাঁচালো কিংবা আঁইআমম্মা…….!!!আর আমরা তখন কার্টুন দেখতাম মিনা-মিঠু। যেখানে স্বাস্থ সচেতনতা কিংবা শিক্ষা অর্জনের জন্য স্কুলের গুরুত্ব দেখানো হতো।।তারপর আস্তে আস্তে বড় হয়ে সিসিমপুর।

আগামি প্রজন্মকে সুস্থ ভাবে বেঁচে থাকার জন্য ছোটবেলাটাকেই সঠিক ভাবে আমাদের গড়ে দেওয়া উচিত।ভালো থাকুন প্রজন্ম যুগ যুগ বেঁচে থাকুক বাংলার ছোটবেলার খেলা গুলো।।।।