একটি সাহসী টিনেজ মেয়ের গল্প


(বাস্তবতার নিরিখে লেখা, স্টুডেন্ট, ভাই-বোন, বন্ধু কেউ মনে কষ্ট পেলে নিজ দায়িত্বে ক্ষমা চেয়ে নিবেন)
অথর
ছোট গল্প ডেক্স   সাহিত্য আসর
প্রকাশিত :৪ জুন ২০১৯, ৫:৩০ অপরাহ্ণ
একটি সাহসী টিনেজ মেয়ের গল্প

প্রথমে শোভা পেলো আল্লাহ খোদার নাম, এরপর শোভা পেলো কোন সুন্দর প্রাকৃতিক দৃশ্য। এই ধরুন, সুন্দর কোন হ্রদ, গাছ-পালা ইত্যাদি। এরপর শোভা পায় কোন রোমান্টিক কোন ফুল, প্রজাতির মতো আকর্ষণীয় কিছু।
আসলে আমি মেয়েটার প্রোফাইল পডুর কথা বলছিলাম এতোক্ষণে।
সাহস কিন্তু অনেকটাই বেড়েছে মাশাল্লাহ।

এরপর নিজের হাতসমেত চুড়ি শোভা পেলো। সাহসী হয়ে উঠছে মেয়েটা। এরপর নিজের এক্কান বা একজোড়া ভ্রু প্লাগ করা বা আইলেনার/মাশকারা মাখা রোমান্টিক হরিনী মার্কা চোখ বসিয়ে দেয় প্রোফাইলে।
শয়তান পোলাগো হাউ রোমান্টিক মার্কা কমেন্টে উত্তেজিত আর শিহরিত হয়ে আরো সাহসী হয়ে উঠলো মেয়েটা। ব্যাস এরপর নিজের ময়দা মাখা বা ফেয়ারেন লাভলু মাখা নিজের পুরো খোমাটাই

(মুখ) বসাইয়া দিলো প্রোফাইলে।

এবার তো লাইক লাভ রিকেক্ট আর কমেন্টের বন্যা। হুজুর মার্কা পুলাপাইন বলে মাশাল্লাহ আপু, সামাজিক পোলাগুলান বলে নাইচ/কিউট আপু, আর ছেছড়া পোলাডি কয়…… । শ শ কিউট আর ছেছড়া পোলাডি খানিকের মধ্যে ঝাপিয়ে পড়লো মেয়েটার ইনবক্সে। হাই হুই হ্যালো ইত্যাদি আপু একটা ছবি দেন্না দেখি। আরো কতো কি! সাহসী মেয়েটার ডিমান্ড বেড়ে গেলো শেয়ার বাজারের মতো তরতর করে। আহা নিজেরে ট্রয়ের হেলেন ভাবতে শুরু করলো ভাবতে শুরু করলো টাইটানিকের নাইকা কেট।

সাহসী মেয়েটা এবার আনন্দে বিগলিত হয়ে একের পর এক উরাধুরা ধামাকা ছবি পোস্ট করা শুরু করলো । হেলনের একিলিস/মেনেলাউস/ আর কেটের জ্যাকরা তো আছে কিউট

নাইচ মার্কা কমেন্ট করার জন্য।

একটা সময় শুরু হলো তার একিলিস আর ক্যাটদের সাথে মনমালিন্য। কয়জনের সাথে আর সে ম্যাসেজিং করতে পারে? রাগে ক্ষোভে তার নায়করা তখন ভিলেনে রুপান্তরিত হয়ে হয়ে গেলো।

ব্যাশ….
একদিন মেয়েটার আবেগ জড়িত পোস্ট “ভাইয়া আর আপুরা, কিছু ক্যারেটেরহীন ছেলে আমার ছবি দিয়ে আমার নামে একটা ফেইক আইডি খুলে খুব নোংরা ছবি পোস্ট করতেছে। বিশ্বাস করেন এর জন্য আমি দায়ী না। প্লিজ লাগে সবাই ঐ আইডিতে রিপোর্ট মারেন”।

আকতার হোসাইন রাপ্পী
(শিক্ষক ও সাংবাদিক)
সকাল ১০.১০ মিনিট
ডেমরা, যাত্রাবাড়ী- ঢাকা।
২৬.০৪.২০১৯

No Comment.