কোষ্ঠকাঠিন্যের সমাধানে হালকা গরম পানি


অথর
ডোনেট বাংলাদেশ ডেক্স   স্বাস্থ্য কথন
প্রকাশিত :২৮ মে ২০১৯, ১:০৫ অপরাহ্ণ
কোষ্ঠকাঠিন্যের সমাধানে হালকা গরম পানি

দীর্ঘদিন ধরে হজমের সমস্যায় ভুগছেন? বহু চেষ্টার পরও ওজন কমছে না? কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা? এমনই অনেক স্বাস্থ্য সমস্যার একটি সহজ সমাধান হলো কয়েক গ্লাস হালকা গরম পানি। প্রতিদিন কয়েক গ্লাস হালকা গরম পানি নিয়মিত খেতে পারলে অনেক স্বাস্থ্য সমস্যা থেকে সহজেই মুক্তি পাওয়া সম্ভব।

আমরা অনেকেই খেতে বসে পানি খাই। এতে খাবারের সঙ্গে পাচক রস সঠিক ভাব মিশতে পারে না। ফলে হজমের নানা সমস্যা দেখা দেয়। খাবার খাওয়ার ৩০ মিনিট আগে বা পরে যদি এক গ্লাস হালকা খাওয়া যায়, তাহলে অ্যাসিডিটি, বদহজম মতো একাধিক সমস্যা থেকে সহজেই মুক্তি পাওয়া সম্ভব। হালকা গরম পানি খাবার দ্রুত হজমেও সাহায্য করে।

দীর্ঘদিন ধরে কোষ্ঠকাঠিন্যে ভুগছেন? সকালে

ঘুম থেকে উঠে খালি পেটে এক গ্লাস হালকা পানি খেতে পারলে পেট সহজেই পরিষ্কার হয়ে যাবে।

সাধারণ তাপমাত্রার পানির তুলনায় হালকা গরম পানি খেতে পারলে শরীরের ভেতরের তাপমাত্রাটা সামান্য হলেও বৃদ্ধি পায় এবং ঘাম হয় বেশি। অতিরিক্ত ঘাম হওয়ার ফলে অপ্রয়োজনীয় উপাদান ঘামের সঙ্গে বাইরে বেরিয়ে যায়। এতে শরীর দ্রুত ডিটক্স হয়ে যায়।

দ্রুত মেদ কমাতে হালকা গরম পানি অত্যন্ত কার্যকর। এতে শরীরের মেটাবলিক রেট বাড়ে এবং সহজেই অনেকটা ক্যালোরি পোড়ে। এছাড়া খিদে বোধ কমিয়ে ওজন কমাতেও সাহায্য করে। প্রতিদিন সকালে খালি পেটে হালকা গরম পানির সাথে পাতিলেবুর রস মিশিয়ে খেতে পারলে মেদ কমবে দ্রুত।

শরীরের তাপমাত্রা বাড়লে শিরা, ধমনীতে রক্তচলাচলের গতিও স্বাভাবিক

ভাবে বৃদ্ধি পায়। বাতের ব্যথা থেকে মুক্তি পেতে খান এক গ্লাস হালকা গরম পানি। এতে শরীরের রক্ত সঞ্চালন বাড়বে ও ব্যথা বোধও ক্রমশ কমে আসবে।

পুষ্টিবিদরা বলেন, পেট পরিষ্কার থাকলে ত্বকও থাকে উজ্জ্বল। প্রতিদিন সকালে, খাবার খাওয়ার ৩০ মিনিট আগে বা পরে যদি এক গ্লাস হালকা গরম পানি খেলে বদহজম, গ্যাসের মতো সমস্যা কমে।

No Comment.