প্রচন্ড দাবদহে চৌগাছার সবজি ক্ষেতে ব্যপক ক্ষতি


অথর
খলিলুর রহমান জুয়েল - চৌগাছা প্রতিনিধি   যশোর, খুলনা
প্রকাশিত :২০ মে ২০১৯, ১১:৩০ পূর্বাহ্ণ

যশোরের চৌগাছার উপজেলার সবজির ভান্ডার নামে পরিচিতি। বর্তমান মাঠে মাঠে ব্যপক পরিমান সবাজ চাষ হয়েছে। স্থানীয় চাহিদা মেটায়ে দেশের বিভিন্ন স্থানে রপ্তানী হয়ে থাকে এখান কার সবজি। উপজেলার কান্দি, পাশাপোল,জগদেশপুর,পাতিবিলা, রায়নগর, ফুলসারা, জামিরা, সাধিপুর, কয়ারপাড়া, রস্তমপুর, লস্কারপুর, খড়ি া, দেবলয়, পুড়াপাড়া, রামকৃষœপুর, আন্দুলিয়া, গয়ড়া, বহিলাপোতা, নারায়নপুর, পেটভরা, হাজরাখানা, বাদেখানপুর, সলুয়া, ভগবানপুর, ইলেশমারী, চুটারহুদা, সা াডাঙ্গা, ফতেপুর, মাকাপুর, আন্দারকোটা, বুড়ি›দিয়া, ইছাপুর, মাজালী, সহ সকল গ্রামে সবজি চাষ হয়ে থাকে। বর্তমানে প্রচন্ড তাপদহে পুঁইশাক,লাউ,মিষ্ঠকুমড়া,ঝিঙ্গে,পটল,লাল শাক, পেঁপে, করেলা উস্তে, পেয়ারা ,কচুমুখি,খিরে, শশা,বেগুন,বরবটি,সিম, কাঁচা মরিচ,সহ সকল প্রকার সবজির নানা প্রকার রোগ দেখা দিয়েছে। ফুল ঝরে পড়া,গাছ লালচে হওয়া, পাতা কুকড়ে

যাওয়া,ফল পড়ে যাওয়া,নানা সমস্যায় জরজরিত। এই ব্যাপারে হাজরা খানা গ্রামের হেলাল উদ্দীন বলেন ৩ বিঘা পটল আছে তাপে পাতা কুকড়ে যাচ্ছে ফলন কমে যাচ্ছে, আন্দুলিয়া গ্রামের আশরাফ আলী, সুখ পুকুরিয়া গ্রামের মতিয়ার রহমান, খড়ি া নওদা পাড়া গ্রামের আব্দুস সালাম বলেন পটল,বরবটি, বেগুন, তাপে পচে যাচ্ছে। কান্দি গ্রামের আব্দুস সামাদ বলেন রোদ্রে মাঠে যাওয়া যাচ্ছেনা।বেগুন পটল, বরবটি লাউ,গাছ লালচে দেলা গিয়েছে এবং ধরণ কম হচ্ছে।এই ব্যাপারে উপজেলা কৃষি সম্পাসারণ অধিদপ্তর বলেন আবহায়া অনুকুলে আসলে সব ঠিক হয়ে যাবে।