বদলি এখন সময়ের দাবি নিজ অধিকার আদায়ে ১ লা সেপ্টেম্বর মানববন্ধন ও আলোচনা সভায় দলে দলে যোগ দিন


অথর
শিক্ষক নিউজ ডেক্স   খোলা মতামত
প্রকাশিত :৩০ আগস্ট ২০১৯, ২:০৪ পূর্বাহ্ণ | পঠিত : 171 বার
বদলি এখন সময়ের দাবি নিজ অধিকার আদায়ে ১ লা সেপ্টেম্বর মানববন্ধন ও আলোচনা সভায় দলে দলে যোগ দিন

নিজ জেলা এবং উপজেলায় বদলি প্রথা চালু করার জন্য বেসরকারি শিক্ষক সমাজ আজ রাজ পথে নামতে বাধ্য হচ্ছে।দূর দূরান্তে দীর্ঘদিন একই প্রতিষ্ঠানে চাকরি করার ফলে বিভিন্ন সমস্যার সম্মুখীন হতে হয় শিক্ষকদের। অনেক ক্ষেত্রে কারণে অকারণে শিক্ষকদের হতে হয় লাঞ্চিত। আবার অনেক শিক্ষককে হারাতে হয় চাকরি। সেই কারণে বেসরকারি শিক্ষা ব্যবস্থায় বদলি প্রথা খুবই জরুরি।
বেসরকারি এমপিওভুক্ত শিক্ষা ব্যবস্থা চালু হওয়ার পর থেকে এখনো পর্যন্ত বদলি প্রথা ফাইল বন্দী হয়েই রয়ে গেল। বেশ কয়েক বার উদ্যোগ নিয়ে ও সফলতার মুখ দেখেনি বদলি প্রথা। যেখানে বদলি প্রথার উদ্যোগ নিয়ে সরকার প্রশংসা কুড়িয়ে ছিল। সাম্প্রতিক সময়ে দায়িত্ব প্রাপ্ত কর্মকর্তা বলেছিলেন

২০২০ সালে বদলি প্রথা চালু করার উদ্দেশ্যে সফটওয়্যারে কাজ চলছে এমন তথ্য প্রকাশিত হয়েছিল। ২০১৯ সাল প্রায় অতিবাহিত হতে চলছে কিন্তু বদলি প্রথার কোন অগ্রগতি নেই। বেসরকারি এমপিওভুক্ত শিক্ষকরা আশায় বুক বেধে ছিল দ্রুত প্রজ্ঞাপন জারি করে এর অবসান ঘটাবেন কর্মকর্তা গণ। কিন্তু দুঃখের বিষয় আজও আমরা বেসরকারি এমপিওভুক্ত শিক্ষকরা আশার আলো দেখতে পেলাম না।বদলি প্রথা এখনো পর্যন্ত চালু না করার কারণে প্রতিবাদ স্বরূপ আগামী ১ লা সেপ্টেম্বর ২০১৯ খ্রি. তাই বেসরকারি এমপিওভুক্ত শিক্ষক বৃন্দ যারা বদলি প্রত্যাশি তারা জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন ও আলোচনা সভার আয়োজন করেছে। মানববন্ধন ও আলোচনা সভার মাধ্যমে বদলি

প্রথা চালু করার জন্য জোর দাবি জানানো হবে। আজ বেসরকারি এমপিওভুক্ত শিক্ষকরা বদলি প্রথা চালুর পক্ষে অবস্থান নিয়েছে। জাগ্রত হয়েছে বদলি প্রত্যাশি শিক্ষক বৃন্দ। বদলি প্রথা চালু না হওয়া পর্যন্ত কর্মসূচি চলছে চলবে এই দৃঢ় প্রত্যয় করেন শিক্ষক বৃন্দ।সম্মানিত বেসরকারি এমপিওভুক্ত শিক্ষক বৃন্দ উক্ত মানববন্ধন ও আলোচনা সভায় আপনারা সবাই নিমন্ত্রিত। সকল ভেদাভেদ ভুলে গিয়ে এগিয়ে আসুন মানববন্ধন ও আলোচনা সভায়। নিজের অধিকার নিজেকে আদায় করতে হবে। নিজ অধিকারের বিষয় তুলে ধরুন। বদলি শিক্ষা ব্যবস্থার প্রাণ কেন্দ্র। যেখানে বদলি প্রথা চালু করলে বাড়তি কোনো খরচ হবে না। বদলি প্রথা চালুর জন্য চাই শুধু ক্লিন মনমানসিকতা।

বদলি প্রথা শিক্ষা ব্যবস্থায় একটি শুদ্ধিকরণ প্রক্রিয়া। যার মাধ্যমে শিক্ষা ব্যবস্থার মূল উদ্দেশ্য ত্বরান্বিত হবে। বদলি প্রথা চালু হলে শিক্ষার গুণগত মান বৃদ্ধি পাবে। শিক্ষকদের মধ্যে আসবে পরিবর্তন এবং পরিবর্ধন। পাঠদান প্রক্রিয়ায় আসবে পরিবর্তন।
দিন বদলে যাচ্ছে অর্থনৈতিক অবস্থার পরিবর্তন এসেছে। বাংলাদেশ আজ বিশ্বের দরবারে মধ্যম আয়ের দেশে পৌঁছে গেছে এবং উন্নয়নশীল দেশের তালিকায় দ্বিতীয়। উন্নয়নশীল দেশের পূর্ব শর্ত হলো দেশের প্রতিটি সেক্টরের উন্নয়ন। যদি কোন সেক্টর অপূর্ণ থাকে তাহলে প্রকৃত উন্নয়ন বাধাগ্রস্ত হবে। আজ বাংলাদেশে অভূতপূর্ব অর্থনৈতিক উন্নয়ন হচ্ছে। আজ বাংলাদেশ অর্থনৈতিক ভাবে স্বাবলম্বী, খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ। দেশের মেরুদণ্ড আজ শক্ত। একটি দেশের মেরুদণ্ড যাদের ওপর নির্ভরশীল তাদেরকে পিছনে ফেলে

রেখে প্রকৃত উন্নয়ন কল্পনা করা যায় না। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ সেক্টর হলো শিক্ষা ব্যবস্থা। শিক্ষা ব্যবস্থা আজ বৈষম্যে ভরপুর। হতাশায় নিমজ্জিত শিক্ষা সেক্টর। শিক্ষা সেক্টরের বৈষম্য দূরীকরণে বাস্তবমুখী পদক্ষেপ গ্রহণ করার জন্য মাননীয় শিক্ষামন্ত্রী ও শিক্ষা উপমন্ত্রীর নিকট বিনীত অনুরোধ জানাচ্ছি।
আরও অনুরোধ জানাচ্ছি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আপনি নিজ হাতে দায়িত্ব নিয়ে বদলি প্রথা চালু করার বিনীত অনুরোধ জানাচ্ছি। তাতে শিক্ষার গুণগত মান বৃদ্ধি পাবে । সমগ্র বেসরকারি এমপিওভুক্ত শিক্ষক সমাজ আপনার পাশে থাকবে চিরকাল।
ধন্যবাদান্তে
মোঃ আবুল হোসেন
কুকুটিয়া কে, কে, ইনস্টিটিউশন
শ্রীনগর, মুন্সিগঞ্জ