বর্ণাঢ্য আয়োজনে শেরপুরে মুক্ত দিবস পালিত।


অথর
জেলা সংবাদদাতা   শেরপুর, ময়মনসিংহ
প্রকাশিত :৭ ডিসেম্বর ২০১৯, ৯:৫৬ অপরাহ্ণ
বর্ণাঢ্য আয়োজনে শেরপুরে মুক্ত দিবস পালিত।

বর্ণাঢ্য আয়োজনে শেরপুর মুক্ত দিবস পালিত হয়েছে।৭ ডিসেম্বর প্রথম প্রহরে ১২:০১ মিনিট বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালে পুস্পত্ববক অর্পনের মাধ্যমে দিনব্যাপি বিভিন্ন কর্মসূচী পালন করা হয়। শেরপুরের জেলা প্রশাসক আনার কলি মাহবুব এর নেতৃত্বে শেরপুর জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ইউনিট কমান্ড কার্যালয় এর সামনে থেকে সকাল ১০টায় এক বর্ণাঢ্য র‌্যালী বের হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক পদিখন করে জেলা শিল্পকলা একাডেমিতে গিয়ে শেষ হয়। এরপর বেলুন ও শান্তির প্রতীক সাদা পায়রা উড়িয়ে বিজয়ের বারতা ছড়িয়ে দেয়া হয়।শিল্পকলা একাডেমী মিলনায়তনে জেলা প্রশাসক স্যার বীর মুক্তিযোদ্ধাগণ এবং আমন্ত্রিত অতিথিদের ফুলেল শুভেচ্ছা প্রদান করেন। অতঃপর জেলা প্রশাসন ও বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ শেরপুর জেলা ইউনিট কমান্ড

এর আয়োজনে জেলা প্রশাসক আনার কলি মাহবুব এর সভাপতিত্বে ও অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট নমিতা দে’র সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথিদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, স্থানীয় সরকার উপ-পরিচালক (উপ-সচিব) জনাব এটিএম জিয়াউল ইসলাম, জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট চন্দন কুমার পাল পিপি, শেরপুর পৌরসভার মেয়র আলহাজ্ব গোলাম মোহাম্মদ কিবরিয়া লিটন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মোঃ আমিনুল ইসলাম, মুক্তিযোদ্ধা কোম্পানী কমান্ডার বীরমুক্তিযোদ্ধা জাফর ইকবাল, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ শেরপুর জেলা ইউনিট কমান্ড এর সাবেক কমান্ডার বীরমুক্তিযোদ্ধা আ স ম নূরুল ইসলাম হীরু, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ শেরপুর সদর উপজেলা ইউনিট কমান্ড এর সাবেক কমান্ডার বীরমুক্তিযোদ্ধা এডভোকেট মোঃ মোখলেসুর রহমান আকন্দ, সিরাজ উদ্দিন প্রমুখ।

এসময় বক্তাগণ ১৯৭১ সালের দীর্ঘ ৯ মাস রক্তক্ষয়ী মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন শেরপুরে পাক হানাদারদের হত্যাযজ্ঞ এর ঘটনাবলী নিয়ে এবং পরবর্তী ৭ ডিসেম্বর শেরপুর পাক হানাদার মুক্ত দিবস এর স্মৃতিচারণ করে বক্তব্য রাখেন। এসময় আলোচনা সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বীর মুক্তিযোদ্ধাগণ, সরকারি-বেসরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারী, স্কাউট সদস্যসহ প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকগণ উপস্থিত ছিলেন।