মহাকাশ গবেষণায় ভারতের সঙ্গে কাজ করার আগ্রহ প্রকাশ নাসার


অথর
প্রযুক্তির খবর নিউজ ডেক্স   বাংলাদেশ
প্রকাশিত :৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১১:৫৩ পূর্বাহ্ণ | পঠিত : 26 বার
মহাকাশ গবেষণায় ভারতের সঙ্গে কাজ করার আগ্রহ প্রকাশ নাসার

পুরোপুরি সফল হয়নি ভারতের চন্দ্র অভিযান প্রকল্প। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে শুক্রবার রাত ১টা ৫৩ মিনিটে চাঁদের মাটিতে পা রাখার কথা ছিলো ভারতের চন্দ্রযান-২’র। কিন্তু চাঁদের মাত্র ২.১ কিলোমিটার আগে থেকে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গিয়েছে ল্যান্ডার বিক্রমের। তবে চন্দ্রাভিযান শতভাগ সফল না হলেও ভারতীয় মহাকাশ গবেষণা সংস্থার (ইসরো) বিজ্ঞানীদের সেই প্রচেষ্টা নজর কেড়েছে গোটা বিশ্বের। ইসরোর এই প্রচেষ্টাকে কুর্নিশ জানিয়েছে মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা। শধু তাই নয়, মহাকাশ গবেষণায় ভারতের সঙ্গে কাজ করার আগ্রহ প্রকাশ করেছে যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা। শনিবার টুইটারে দেওয়া এক পোস্টে নিজেদের এমন আগ্রহের কথা জানায় সংস্থাটি। ওই টুইটবার্তায় জানানো হয়, ‘মহাকাশ খুবই চ্যালঞ্জিং জায়গা।

চাঁদের দক্ষিণ মেরুতে ইসরোর চন্দ্রযান ২ নামানোর চেষ্টার প্রশংসা করছি। আপনারা আমাদের উত্সাহ দিয়েছেন। আশাকরি ভবিষ্যতে মহাকাশ গবেষণায় আমরা একসঙ্গে কাজ করব।’

চন্দ্রযান-২’র ৪৭ দিনের যাত্রার শেষ দিন ছিলো শুক্রবার। রাত ১টা ৫৩ মিনিটে চাঁদের মাটিতে পা রাখার কথা ছিলো বিক্রমের, দক্ষিণ মেরুর কাছে। যেখানে আজ পর্যন্ত আর কোনো দেশের যান পা রাখেনি। কিন্তু শেষ মুহূর্তে ব্যর্থ হয় ভারতের এই চন্দ্র অভিযান। এই ব্যর্থতার খবরে মুষড়ে পড়ে গোটা ভারত। হতাশ হন ইসরোর বিজ্ঞানীরাও। তবে হতাশ নন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। জাতির উদ্দেশে দেয়া ভাষণে তিনি গোটা দেশকে আশার বাণী শুনিয়ে গেছেন। আগামীতে ফের চন্দ্র অভিযান শুরু করারও ইঙ্গিত দিয়েছেন। ভারতের বিজ্ঞানীরা দাবি

করছেন, চন্দ্রযান-২ ব্যর্থ হলেও এই অরবিটারের ছবি থেকে বিজ্ঞানীদের হাতে উঠে আসবে গুরুত্বপূর্ণ বৈজ্ঞানিক তথ্য। ভারত সরকারের প্রিন্সিপ্যাল সায়েন্টিফিক অ্যাডভাইজর আধ্যাপক কে বিজয় রাঘবন ট্যুইটারে বলেন, এই অরবিটারের আয়ু এক বছর হবে বলে পরিকল্পনা করা হয়েছিল। কিন্তু ইসরো যেভাবে পাঠিয়েছে তাতে ৭ বছর থাকবে অরবিটারটি।