মহারাজপুর ইউনিয়নে বোরো ধানের বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা


অথর
বসির আহাম্মেদ, ঝিনাইদহ প্রতিনিধি   কৃষি বার্তা
প্রকাশিত :২৮ এপ্রিল ২০১৯, ৫:১৬ পূর্বাহ্ণ
মহারাজপুর ইউনিয়নে বোরো ধানের বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা

বিস্তৃত ধান ক্ষেত যেদিকেই চোখ যায় শুধু সৌনালী রঙ্গের অপরুপ সমাহার। বোরো ফসলের মাঠ যেন ধানের র্শীষের মৌ মৌ গন্ধে সৌনালী রঙ্গে পরিপূর্ণ । চারিদিকে তাকালে যেন এক নয়নাভিরাম দৃশ্য। কৃষকের মনে দোলা দিচ্ছে এক ভিন্ন আমেজ। আবহাওয়া অনুকুলে থাকায় শস্য ভান্ডার বলে খ্যাত ঝিনাইদহ সদর উপজেলার মহারাজপুর ইউনিয়নে চলতি বোরো মৌসুমে সৌনালী ধানগাছ যেন বাতাসে দোল খাচ্ছে। তবে প্রাকৃতিক কোন ধরণের দুযোগ না হলে এবার ধানে বাম্পার ফলন হবে বলে অত্র এলাকার কৃষকরা আশায় বুক বেঁধে আছেন। তবে সংঙ্কায় আছে ধানের দাম নিয়ে।সদর উপজেলার কুলবাড়িয়া গ্রামের কৃষক সাইদুল ইসলাম জানান, চলতি মৌসুমে ৫ বিঘা জমিতে বোরো ধানের আবাদ

করেছি তবে সরকার যদি সরাসরি কৃষকের কাছ থেকে ধান ক্রয়করে তাহলে অত্র এলাকার কৃষকরা ধানের ন্যায্যমূল্য পাবে বলে আশাকরি। মহারাজপুর ইউনিয়ন উপ-সহকারী কৃষি অফিসার শাহেদ আলী জানান, চলতি মৌসুমে ইউনিয়নে তিনটি ব্লকে ২২’শত ৯০ হেক্টর জমিতে বোরো ধানের আবাদ করা হয়েছে। এবার কৃষকরা দেশী জাতের মধ্যে আবাদ করেছে মিনিকেট,সুবললতা,বাসমতী খাটোবাবুসহ বিভিন্ন জাতের বোরো ধান।এছাড়াও হাইব্রিড উপসী জাতের প্রভৃতি বোরো ধান চাষ করেছে। এখন পর্যন্ত বোরো ক্ষেতে তেমন কোন রোগবালাই দেখা যায়নি। সরেজমিন বিষয়খালীসহ বিভিন্ন এলাকার মাঠ ঘুরে দেখা গেছে বর্তমানে বোরো ধান ক্ষেতের ধান সোনালী আকার ধারণীয় করেছে। সদর উপজেলার বিষয়খালী গ্রামের কৃষক জানান আনারুল, শাহানূর আলম কানন,নজরুল

ইসলাম ৪/৫দিন পর ধান কাটা শুরু হবে বলে । ইউনিয়ন উপ-সহকারী কৃষি অফিসার আরো জানান,প্রাকৃতিক দূরযোগ না হয় আবহাওয়া অনুকুলে থাকলে চলতি বোরো ধান চাষিরা বাম্পার ফলন পাবে বলে আশাকরি।