সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষা কতদূর?


দ্রুত বাস্তবায়ন করা হোক
অথর
ডোনেট বাংলাদেশ ডেক্স   শিক্ষা সংবাদ
প্রকাশিত :১২ এপ্রিল ২০১৯, ১:০৫ পূর্বাহ্ণ
  • 22
    Shares
সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষা কতদূর?

চলতি এইচএসসি পরীক্ষার্থীরা ক’দিন পর ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নেবে। সে ক্ষেত্রে সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষার অগ্রগতি কতদূর এ প্রশ্ন আবার উঠছে। বুধবার সাংবাদিকদের এমন এক প্রশ্নের জবাবে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, সবার সদিচ্ছা থাকলে বিশ্ববিদ্যালয়ে সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষা সম্ভব। বস্তুত গত বছর জানুয়ারিতে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উচ্চপর্যায়ের এক বৈঠকে দেশের সব পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে সমন্বিত বা গুচ্ছভিত্তিক ভর্তি পরীক্ষার সিদ্ধান্ত নেয়াও হয়েছিল।

সে সময় গুচ্ছভিত্তিক ভর্তি পরীক্ষার রোডম্যাপ তৈরির লক্ষ্যে উচ্চক্ষমতাসম্পন্ন একটি কমিটি গঠন করা হয়েছিল এবং ওই কমিটিকে গত বছরের ১৫ ফেব্রুয়ারির মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছিল। কিন্তু এখন শিক্ষামন্ত্রীর বক্তব্য থেকে মনে হচ্ছে বিষয়টি এখনও সিদ্ধান্তের পর্যায়েই রয়েছে, বাস্তবায়নে অগ্রগতি নেই।

তাহলে কি এবারও বিশ্ববিদ্যালয়ে সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষা হচ্ছে না? শিক্ষার্থীদের ভোগান্তি কমাতে সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষা নিয়ে দীর্ঘদিন আলোচনা হলেও, এমনকি খোদ রাষ্ট্রপতি এ ব্যাপারে আগ্রহ প্রকাশ করা সত্ত্বেও তা এখনও বাস্তবায়ন না হলে সেটা হবে দুর্ভাগ্যজনক।

মূলত বড় বড় বিশ্ববিদ্যালয়ের অনাগ্রহের কারণেই বিষয়টি আটকে আছে। ধারণা করা হয়, এর পেছনের কারণ হল বিদ্যমান ভর্তি পরীক্ষা পদ্ধতিতে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর বড় অঙ্কের অর্থ আয়। ভর্তি বাণিজ্য ও কোচিং-গাইড বাণিজ্যের জন্য অনেকেই গুচ্ছ পদ্ধতির বিরোধিতা করেন। এ পদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষা নেয়া হলে এ ধরনের অনৈতিক ব্যবসা নিরুৎসাহিত হবে। সবচেয়ে বড় কথা, গুচ্ছ পদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষা হলে ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকদের দুর্ভোগ লাঘব হবে।
বর্তমানে

শুধু মেডিকেল কলেজগুলোতে গুচ্ছভিত্তিক বা সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষা পদ্ধতি চালু আছে। অনেক আগে বাংলাদেশ ইন্সটিটিউট অব টেকনোলজির অধীনে কুয়েট, চুয়েট ও রুয়েটে (সে সময় যথাক্রমে বিআইটি খুলনা, চট্টগ্রাম ও রাজশাহী নামে এগুলো পরিচিত ছিল) একযোগে সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হতো।

সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় এবং যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে সমন্বিত পদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষা নেয়ার উদ্যোগ গ্রহণ করা হলেও পরে তা বাতিল হয়ে যায়। আমরা আশা করব, দেশের সব পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে গুচ্ছভিত্তিক ভর্তি পরীক্ষা পদ্ধতি চালু করতে সংশ্লিষ্টরা যথাযথ পদক্ষেপ নেবেন। পরবর্তী সময়ে প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকেও এ পথেই এগোতে হবে।

No Comment.