সর্বনাশা বন্যা


মোঃ হাসান হাফিজুর রহমান
অথর
নতুনত্বের প্রচেষ্টা ডেক্স   সাহিত্য আসর
প্রকাশিত :৮ আগস্ট ২০১৯, ১১:০৮ অপরাহ্ণ
সর্বনাশা বন্যা

ফুটছে না ফুল কোন গাছে আজ নেই ভ্রমরের গান,
থেমে গেছে আজ মিষ্টি সুরে পাখির সে কলতান।
পথে ঘাট সব ডুবে একাকার হারিয়ে মেঠোই দূর,
সন্ধ্যা হলেও যায় না শোনা রাখালিয়া বাঁশির সুর।
রাতের আঁধারে ডাকে না শিয়াল হুক্কা হুয়া রবে,
মোরগের ডাক থেমে গেছে ভোরে নিথর হয়েছে সবে।
সবুজের ডালি নেই এক ফালি নেই কোন ফুল ফল,
যে দিকে তাকাই শুধু ভয় হয় চোখে ঝরে নোনা জল।

বন্যার তোড়ে ভেসে গেছে সব নেই কিছু আর বাকী,
কোন্‌ সে আশায় নতুন করে জীবনের ছবি আঁকি।
যা ছিল সব গ্রাস করেছে, কেড়ে নিয়েছে বন্যা,
অবুঝ বালক না খেয়ে আছে, না খেয়ে আছে

কন্যা।
খাবার বিনা কাটিছে নিশি বাবার মাথায় হাত,
কতদিন হল খাবার জোটেনি, জোটেনি দু’মুঠো ভাত।
কান্নায় শিশু আছড়ে পড়েছে অভাগী মায়ের বুকে,
আশা নাই কোন, নাই ভরসা নিঃশেষ ধুঁকে ধুঁকে।
ছটফট করে পীড়িত শিশু নেই হেথা কোন পথ্য,
আঁধার কেটে কবে হবে ভোর নেই কোথা কোন তথ্য।
পানির মাঝে বসবাস করেও খাবার পানি নাই,
হাহাকার আছে চারিদিকে শুধু নাই কোথা কোন ঠাই।