সুন্দরগঞ্জে বন্যা সহিষ্ণু ধানের ভাসমান বীজতলা


অথর
আবু বক্কর সিদ্দিক, সুন্দনগঞ্জ প্রতিনিধিঃ   কৃষি বার্তা
প্রকাশিত :২৫ জুলাই ২০১৯, ৭:২৮ অপরাহ্ণ
সুন্দরগঞ্জে বন্যা সহিষ্ণু ধানের ভাসমান বীজতলা

গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জে বন্যা সহিষ্ণু ব্রি- ৫১ প্রজাতের ধানের ভাসমান বীজতলায় আশাব্যঞ্জক রূপ ধারণ করেছে। জানা যায়, চলমান বন্যায় উপজেলার নি¤œা লের বীজতলায় ব্যাপক ক্ষতি সাধিত হয়েছে। এসব বীজতলায় ধানের চারা বিনষ্ট হওয়ায় উপজেলা কৃষি বিভাগের উদ্যোগে ভাসমান বীজতলায় চারা জন্মানোর জন্য কৃষকদেরকে উদ্বুদ্ধ করণ করতে বন্যা সহিষ্ণু প্রজাতের ব্রি- ৫১ ধানের বীজ প্রদান করে তা সঠিক পরিচর্যা ও পরামর্শ প্রদান করা হচ্ছে। এমন একটি বীজতলায় উপস্থিত হয়ে সংশ্লিষ্ট কৃষক রাজু মিয়াকে পরামর্শ দেন উপজেলার উপ-সহকারি কৃষি কর্মকর্তা- আব্দুর রাজ্জাক, এসএম সরওয়ার হোসেন ও মোশাররফ হোসেন। এব্যাপারে উপ-সহকারি কৃষি কর্মকর্তাগণ জানান, ব্রি- ৫১ প্রজাতের ধানের চারা রোপনের পর প্রায় পক্ষকাল

(১৪ দিন) পর্যন্ত পানি নিচে নিমজ্জিত থাকলেও আশানুরূপ ফলনে কোন সমস্যা হয় না। ব্রি- ৫১ প্রজাতের ধান বন্যা সহিষ্ণু হিসেবে বন্যা কবলিত এলাকা সমুহে কৃষকদেরকে উদ্বুদ্ধ করণসহ সঠিক পরামর্শ ও পরিচর্যার ক্ষেত্রে উপজেলা কৃষি বিভাগ বদ্ধপরিকর। রামজীবন ইউনিয়নের রামজীবন ব্লকে দায়িত্বরত উপ-সহকারি কৃষি কর্মকর্তা- আব্দুল রাজ্জাক জানান, তার ব্লকের কৃষক রাজু মিয়াকে ৫ কেজি ধানবীজ প্রদান করা হয়। যা সুন্দরগঞ্জ- গাইবান্ধা আ লিক মহাসড়কের পাশে ডোমেরহাট সংলগ্ন জলাশয়ে ভাসমান বীজতলায় বর্তমানে চারাগুলো সুন্দর ও দৃশ্যমান। এধানের চারা রোপণের ১শ’ ২৫ থেকে ১শ’ ৩০ দিনের মধ্যে ধান কর্তন করা যায়। উৎপাদনের ক্ষেত্রে আশানুরূপ ফলন সম্ভব। হেক্টর প্রতি প্রায় ৬ মেট্টিক টন

ধান উৎপাধন সম্ভব। এ ধানের চালের ভাত সু-স্বাদু ও মজাদার। এ ধান শুধুমাত্র খরিপ-২ বা আমণ মৌসূমের জন্য চাষোপযোগি।
এব্যাপারে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা- কৃষিবিদ সৈয়দ রেজা-ই- মাহমুদ জানান, এবারে উপজেলা কৃষি বিভাগের উদ্যোগে বন্যা কবলিত কৃষকদেরকে বন্যা সহিষ্ণ ধান (ব্রি- ৫১) চাষে উদ্বুদ্ধ করণের জন্য ৩২টি ভাসমান বীজতলা স্থাপন করা হয়েছে। এসব বীজতলায ইতোমধ্যে জন্মানো চারাগুলো রোপণযোগ্য হয়েছে। বীজতলায় এ ধানের চারার বয়সকাল ২৫ থেকে ৩০ দিন। প্রতিটি ভাসমান বীজতলায় ৫ কেজি করে ধানবীজ বপণ করা হয়েছে। প্রতি ৫ কেজি করে ধানের চারায় ৫০ শতক থেক ৫৫ শতক জমিতে রোপণ করা সম্ভব। ব্রি- ৫১ প্রজাতের ধান বন্যা সহিষ্ণু

হওয়ায় নি¤œা ল, বন্যা ল বা জলাবদ্ধ জমিতে চাষে কোন সমস্যা নেই।