২০২০ সালে ১১তম গ্রেড, ২০ মে’র কর্মসূচি স্থগিত


অথর
ডোনেট বাংলাদেশ ডেক্স   শিক্ষা সংবাদ
প্রকাশিত :১৪ মে ২০১৯, ১২:১৫ পূর্বাহ্ণ
২০২০ সালে ১১তম গ্রেড, ২০ মে’র কর্মসূচি স্থগিত

প্রাথমিকের শিক্ষকদের ১১তম গ্রেডের আশ্বাস দিয়েছেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব আকরাম-আল-হোসেন। তিনি বলেছেন, সহকারী শিক্ষকদের শতভাগ পদোন্নতি দেওয়া হবে। নিয়োগ যোগ্যতা উন্নীত হওয়ায় সংশ্লিষ্ট সবার বেতন গ্রেডও উন্নীতকরণ হবে ২০২০ সালে ১৭ মার্চের মধ্যে। এ সময়ের মধ্যে কোনো প্রধান শিক্ষক নিয়োগ হবে না। বাংলাদেশ প্রাথমিক বিদ্যালয় সহকারী শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক সাবেরা বেগম এসব তথ্য জানান। তবে ২০ মে’র কর্মসূচি আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে তিনি জানান।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা অধিদপ্তরের সম্মেলন কক্ষে শিক্ষক নেতাদের সাথে এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।বৈঠকে সচিব ছাড়াও প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের ডিজি ও ১৯জন শিক্ষক নেতা উপস্থিত ছিলেন। বৈঠক উপস্থিত সহকারী শিক্ষক সমিতির সভাপতি মো. শামসুদ্দীন

মাসুদ বলেন, প্রাথমিকে শুধু সহকারী শিক্ষকের নিয়োগ হবে। ১৯৮৫ সালের নিয়োগ বিধি পরিবর্তন করে নতুন বিধি হবে। এছাড়া সব পদে পদোন্নতির মাধ্যমে নিয়োগসহ সব বৈষম্য দূর করা হবে। মার্চের মধ্যে দাবি মানার আশ্বাস দেন সচিব। এছাড়া বেতন বৈষম্যও আর থাকবে না।

বৈঠকে সচিব বলেন, আগামী দিন থেকে প্রধান শিক্ষক নিয়োগ সব দায়িত্ব প্রাথমিকের মাধ্যমে হবে; পিএসসি দ্বারা নয়। যেহেতু সামনে মুজিব বর্ষ। তাই ২০২০ সালের ১৭মার্চ মুজিব বর্ষের আগেই সব দাবি মানা হবে। এ সময় তিনি তিনি উপস্থিত শিক্ষক নেতাদের মাধ্যমে সকল সহকারী শিক্ষকদের কর্মসূচি স্থগিত করার আহ্বান জানান।
তিনি আরো বলেন, শুধুমাত্র তাই নয় আপনার (সহকারী শিক্ষকরা) যাতে প্রধান শিক্ষক

পদের উপরের পদেও যেতে পারেন; সেই ব্যবস্থা রাখা হবে। আপনার যাতে সহকারী জেলা শিক্ষা অফিসার বা শিক্ষা অফিসার কিংবা তার চেয়ে বড় পদে যেতে পারেন সেই ব্যবস্থাও রাখা হচ্ছে।

বৈঠকের পর উপস্থিত শিক্ষক নেতারা ২০ মে অনুষ্ঠেয় অবস্থান কর্মসূচির স্থগিত ঘোষণা করেন। উপস্থিত একাধিক নেতা জানান, সচিব মহোদয়ের সঙ্গে সফল বৈঠক হয়েছে। তিনি আমাদের সব দাবি-দাওয়া পূরণের আশ্বাস দিয়েছেন। তার প্রেক্ষিতেই অবস্থান কর্মসূচি স্থগিত ঘোষণা করা হলো।

১১তম গ্রেডে বেতন প্রদান ও বৈষম্য নিরসনের দাবিতে দীর্ঘদিন ধরে আন্দোলন করছেন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকরা। আন্দোলনের অংশ হিসেবে ফেব্রুয়ারি ও মার্চ মাসে ধারাবাহিক কর্মসূচি পালন করেন প্রাথমিক সহকারী শিক্ষকরা। এছাড়া গত ১৪ মার্চ দেশব্যাপী একযোগে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেন তারা। এরপরও দাবি আদায় না হওয়ায় ২০ মে ঢাকায় কর্মসূচি পালনের কথা ছিল। কিন্তু আজকের আশ্বাসের পর সেই কর্মসূচি পালিত হচ্ছে না।

No Comment.